আনোয়ার হোসেন আকাশ,
রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধি:

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে অবৈধভাবে জমি দখলের চেস্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় লাঠি ও লোহার রড় ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে এক নারীর দুই হাত ভেঙ্গে ফেলাসহ পাঁচজনকে আহত করা হয়েছে। আহত করেও থেমে নেই তারা হুমকি দিচ্ছে মেরে ফেলার। গত ১৪ জুলাই সকালে ওই উপজেলার ডাঙ্গীপাড়া গ্রামে এ ঘটনার শিকার হন ভুক্তভোগী পরিবার।

হুমকির ভয়ে উপায় না পেয়ে আহত অবস্থায় গেল ( ২৮ জুলাই) হরিপুর থানায় ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন ভুক্তভোগী পরিবার।
মামলার আসামীরা হলেন- ওই উপজেলার একই গ্রামের শাজাহান আলী, মাইনুল হক, জুয়েল, রাসেল, রেহেনা ও আলিয়া।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ঘটনার দিন আসামীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে রেস্ট্রিকৃত জমি জোর পূর্বক দখল করতে গেলে বাধাঁ দেয় জমির মালিক সফিকুল ইসলাম। এসময় ক্ষিপ্ত হয়ে শাজাহানের নেতৃত্বে সবাই মিলে লাঠি ও লোহার রড় ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে যখম করে সফিকুলকে। এসময় তার স্ত্রী স্বামীকে বাচাতে মালেকা এগিয়ে আসলে সবাই মিলে তার দুই হাতে আঘাত করলে দুটি হাতই ভেঙ্গে যায়। পরে পরিবারের অন্যান্য সদস্যরাও এগিয়ে আসলে তাদেরকেউ মারপিট করে দখলবাজরা।

পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পৌছালে পালিয়ে যায় তারা। সেখান থেকে আহতদের তাদের উদ্ধার হরিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ১৪ জুলাই উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর মেডিকেলে স্থানান্তর করেন চিকিৎসক। পরে আহতরা দিনাজপুর মেডিকেলে চিকিৎসা নেয়। পরে তারা দ্রুত উন্নতির জন্য দিনাপুরের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে চিকিৎসা নেয়। বর্তমানে আহতরা সবাই অসুস্থ্য অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে। ভুক্তভোগী পরিবারের দাবি তাদের শাস্তি না হলে প্রাণে মেরে ফেলবে। তাই সুষ্ঠ বিচারের দাবি করেছেন তারা।

আহতদের মধ্যে গুরুত্তর হলেন, সফিকুল ইসলাম, মালেকা আক্তার, আখি আক্তার।
আর মারপিটের ঘটনাটি ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ভাইরাল হয়েছে। যা ঘটনার সত্যতা রয়েছে।

এ বিষয়ে হরিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে মামলা হয়েছে। এরইমধ্যে মামলার আসামী দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.