ভারত থেকে নিউজ দাতা মনোয়ার ইমাম।
অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশম্মা সরাসরি আইন আনতে চলেছে তার রাজ্য। নতুন আইন এ উল্লেখ যে এবার থেকে কোন মন্দির আশেপাশে তো নয়ই, বরং মন্দির থেকে পাচ কিলোমিটার মধ্যে গরুর মাংস বেচাকেনা করা চলবে না।

এই আইনের তিব্র প্রতিবাদ করেছেন অসমের ভারতের জাতীয় কংগ্রেস জোট শরিক ইউ ডি এল এফ প্রধান ও সংসদ সদস্য বদরুদ্দীন আকমল সাহেব। তিনি ও তার দলের বিধায়ক এবং অসমের ভারতের জাতীয় কংগ্রেস দলের বিধায়করা এর প্রতিবাদ করেছেন। তাদের দাবি এই আইনের ফলে হিন্দু ও মুসলিমদের মধ্যে বিভাজন করে দেবে।

এই আইনের ফলে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ তাদের খ্যাদ্যর উপর বাধানিষেধ করা হবে যা ভারতের সংবিধান বিরোধী। এটি হতে দেওয়া যায় না। সম্প্রতি অসম রাজ্যের ১৪,বৎসর, বয়সের গরু ও বাচুর হত্যা নিষিদ্ধ। কিন্তু অন্যান্য পশু যেমন মেষ বকরি, উট, দুম্বা এবং ছাগল কুরবানী ও হত্যা করা যাবে। অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশম্মা সরাসরি আইন অনুসারে যে কাজ করতে চলেছে তা মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ উপর আঘাত বলে মনে করেন ভারতের জাতীয় কংগ্রেস জোট ইউ ডি এল এফ প্রধান জনাব বদরুদ্দীন আকমল সাহেব।

তার দাবি যে ভাবে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ উপর গরুর মাংস বেচাকেনা নিষিদ্ধ করতে চাইছে তা উত্তর প্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ সরকার কে হার মানিয়ে দেবে। ভারতের যেখানে যেখানে বিজেপি সরকার আছে সেখানে গরুর মাংস বেচাকেনা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। যা ভারতের সংবিধানের বিরোধী তাই এই বিল প্রত্যাহার করতে হবে। নতুবা আইনের দারস্থ হতে হবে বলে জানিয়েছেন ইউ ডি এল এফ প্রধান জনাব বদরুদ্দীন আকমল সাহেব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *