এস এম গোলাম রাবিব : নেত্রকোনা প্রতিনিধি

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বারহাট্টা সদর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে চান জনপ্রিয় সমাজকর্মী,সাবেক ছাত্রনেতা ও আওয়ামীলীগ সদস্য মনোরঞ্জন সরকার।

এ লক্ষ্যে তিনি ইউনিয়নের প্রত্যেক গ্রামে গ্রামে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।সাধারণ মানুষের সমর্থন নিয়েই নির্বাচনে তার অংশ নেয়া অনেকটাই এখন নিশ্চিত।

কেন নৌকার প্রার্থী হতে চান আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে, তার সাথে এক সাক্ষাৎকারে এসব প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন তিনি।

নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হওয়ার কারণ সম্পর্কে মনোরঞ্জন সরকার বলেন, আমার ইউনিয়ন অবহেলিত।এখানে দরিদ্র লোকের সংখ্যা অনেক বেশি। আমি সবসময়ই চেষ্টা করি তাদের সাহায্য করার। কিন্তু তা খুবই সামান্য। যা আমাকে প্রতিনিয়ত পীড়া দেয়। আমার মনে হয়েছিল একটা বড় প্লাটফর্ম পেলে এসব দুঃখী মানুষকে স্বাবলম্বী করে তুলতে পারতাম। সেই চিন্তা থেকেই মূলত নির্বাচন করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছি। আমি দুঃখী মানুষের পাশে থাকতে চাই। তাদের জন্য কাজ করতে চাই। বিশেষ করে আমার নির্বাচনী এলাকা বারহাট্টা সদর ইউনিয়নের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নসহ গরীব-দুঃখী মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসতে চাই।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি একজন সাধারণ মানুষ। দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে সামাজিক কার্যক্রমে সম্পৃক্ত রেখেছি,এখন আমি গণমানুষের পাশে থাকতে চাই। তাদের জন্য কিছু কাজ করে যেতে চাই। জনগণ যদি চায় তাহলে আমি নির্বাচন করব।সাধারণ মানুষের কাছ থেকে আমার প্রাপ্তির শেষ নেই। একটা সময় ভেবে দেখলাম, মানুষ আমাকে এতো ভালোবাসে, অথচ তাদের জন্য আমি কিছু করব না- তা তো হতে পারেনা।

মনোরঞ্জন সরকার বলেন, আমি আমার সততা, গ্রহণযোগ্যতা ও জনপ্রিয়তা দিয়ে বারহাট্টা সদর ইউনিয়নে নির্বাচিত হতে পারবো বলে বিশ্বাস করি। কারণ এখানকার সাধারণ জনগণ আমাকে অনেক ভালোবাসে। আমি বারহাট্টা সদর ইউনিয়নের অনেক সামাজিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত রয়েছি আর থাকবো ইনশাআল্লাহ।

তিনি আরোও বলেন, জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতেই নৌকার মনোনয়ন চাই,যদি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে পছন্দ করে নৌকা মার্কা আমার হাতে তুলে দেয় তাহলে আমি নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে প্রধানমন্ত্রীকে একটি বিজয়ী নৌকা উপহার দেবো এটাই আমার অঙ্গীকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *