ইউসুফ আলী প্রধান ।
দেশে দীর্ঘ আট মাস যাবত করোনা ভাইরাসের মহামারী চলছে। করোনাভাইরাস সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমজীবি আর পথে থাকা পথ হারা মানুষ।
লকডাউনে তাদের অবস্থা আরও করুণ। কাজ নাই, কর্ম নাই শ্রমজীবীদের।
আরো প্রান্তিক গোষ্ঠীর যারা যেমন ভবঘুরে ভিক্ষুক-প্রতিবন্ধী নারী ও শিশুদের খাদ্যাভাব চরমে।
এমনি দুর্যোগের সময় সীমিত সামর্থ্য নিয়ে নিজের উদ্যম সাহসকে পুঁজি করে নারায়ণগন্জ জেলা বাসদ একটি ব্যতিক্রমী কিন্তু সময়ের বাস্তবতায় অভিসম্ভাবী একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছেন “কমিউনিটি কিচেন”।
গাল ভরা নাম হলেও কমিউনিটি কিচেন এখন নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রায় দুই শতাধিক গরীব দুঃখী পেটভুখা মানুষের আশার আলো হয়ে দেখা দিয়েছে।
কোন পোষ্টার নাই, মাইকিং নাই কিন্তু গরিবরা জেনে গেছে ২ নং রেলগেট এলাকায় দুপুরবেলা বাসদ অফিসে গেলে রান্না করা গরম গরম খিচুড়ি ডিম ও গরম ভাত, মাছের তরকারি পাওয়া যাবে।

গরিব মানুষগুলো অভক্ত পেটে তরতাজা খাবারের প্যাকেট পেয়ে ভুলে যায় সবকিছু।
তাদের তাড়া কতক্ষণে ফুটপাতে বসবে বা তার বস্তির ডেরায় যাবে, রেলস্টেশনের খোলা জায়গায় বসে পেট ভরে আহার করবে।
বাসদের নেতারা তাদের রান্না করা ভাত তরকারি খেয়েছি কিনা জানিনা কিন্তু যারা এখান থেকে ভাত-তরকারী নিয়ে যায় তারা যে কত তৃপ্তি সহকারে খায় এটা দেখলে যে কারো চোখে পানি এসে যাবে।
বাসদের কমিউনিটি কিচেন দীর্ঘজীবী হোক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *