ডেস্ক রিপোর্টঃ

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় এক চিকিৎসককে রোগ সংক্রমণ আইনে জরিমানা করায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. নজরুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। একইসঙ্গে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল বশিরুল ইসলামকে নির্বাহী কর্মকর্তার অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করার নির্দেশ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জন প্রশাসন মন্ত্রণালয়।

রোববার (৪ জুলাই) বিকালে এ সংক্রান্ত আদেশ প্রাপ্তির বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. কামরুল হাসান।

এরআগে শনিবার (৩ জুলাই) রাতে ‌‌‘লকডাউনে চিকিৎসককে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা’ শিরোনামে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়, শুক্রবার (২ জুলাই) সন্ধ্যায় ফরহাদ কবির নামের এক চিকিৎসক মোটরসাইকেলযোগে সাতকানিয়া পৌর এলাকায় চেম্বারে যাওয়ার পথে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম দন্ডবিধি ২৭০ ও ২৭১ ধারা উল্লেখ করে ডাক্তারকে রোগ সংক্রমণ আইনে মামলা দিয়ে এক হাজার টাকা জরিমানা করেন। এ সময় ডা. ফরহাদ কবির লকডাউনে চিকিৎসকদের চলাচলে বিধি নিষেধ না থাকার বিষয়টি ইউএনওকে জানালে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ডাক্তারদের সম্পর্কে নানা ধরনের কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন। এক পর্যায়ে ইউএনও মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি চাইলে আপনাকে (ডা. ফরহাদ কবির) জেল দিতে পারি। তা করলাম না। দ্রুত জরিমানা দিয়ে দেন।’ তখন বাধ্য হয়ে ডা. ফরহাদ কবির এক হাজার টাকা জরিমানা দেন।

এদিকে, ঘটনার পরদিন ডা. ফরহাদ কবিরের কাছ থেকে জরিমানা আদায়ের বিষয়টি স্বাচিপ’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. আ ম ম মিনহাজুর রহমান বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীরকে জানান। পরে বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর ডাক্তারের কাছ থেকে জরিমানা আদায়ের বিষয়টি চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসককে জানান। এরপর প্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব স্বাক্ষরিত এক আদেশে সাতকানিয়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলামকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়। একই আদেশে হবিগঞ্জের ইউএনও ফাতেমা তুজ জোহরাকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে পদায়ন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *