মোঃ তারিফুল আলম (তমাল)
শেরপুর প্রতিনিধিঃ

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে মাথাগুজার ঠাই নেই বাহার উদ্দিনের। ফলে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন তিনি। বাহার উদ্দিন উপজেলার নলকুড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ ডেফলাই গ্রামের মৃত আব্দুল ওয়াহাবের ছেলে।

পেশায় তিনির একজন দিনমজুর। ২ ছেলে মেয়ে নিয়ে ৪ সদস্যের পরিবার। সহায় সম্বল বলতে কিছুই নেই। নেই বসতভিটের জমিও । অন্যের জমিতে মাটির একটি দেয়াল ঘর নির্মাণ করে বসবাসের পাশাপাশি দিন মজুরি করে যা পান তাই দিয়ে কোন রকমে চলে তার সংসার । একদিন কাজে না গেলে সে দিন থাকতে হয় তাদের অনাহারে অর্ধাহারে।

গত বছর অভিরাম বর্ষন ও পাহাড়ি ঢলে থাকার একমাত্র ঘরটি বিধ্বস্ত হয়। কিন্তু টাকা পয়শার অভাবে ঘরটি আর সংস্কার করতে পারেননি বাহার উদ্দিন। পলিথিন কাগজ আর ছেড়া কাথায় জুড়াতালি দিয়ে একটি ঝুপড়িতে সন্তানাদী নিয়ে অতিকষ্টে দিনাতিপাত করে আসছেন। বাহার উদ্দিন বলেন গত এক বছরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে একটি সরকারি ঘর চেয়ে বহুবার আবেদন নিবেদন করলেও কোন কাজে আসেনি। বর্তমানে বাহার উদ্দিন পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করে আসছেন।

বাহার উদ্দিন একটি ঘর নির্মানের জন্য আর্থিক সহায়তা পেতে জেলা প্রশাসকসহ প্রশাসের কর্তাব্যক্তিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। ঝিনাইগাতী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারুক আল মাসুদ বাহার উদ্দিনের ঘর নির্মাণে সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *