তানোর(রাজশাহী)প্রতিনিধি

রাজশাহীর তানোরে পিতা, সৎ মা, খালার অমানুষিক নির্যাতন সইতে না পেরে বিষপানে অন্তরা হালদার (১৫) নামের এক তরুণী আত্মহত্যা করেছে। তার পিতার নাম বিপদ হালদার ওরফে মেরু সে তানোর পৌরসভার নয় নম্বর ওয়ার্ডের মাসিন্দা হালদারপাড়া মহল্লার বাসিন্দা।

এ ঘটনায় একই গ্রামের অনিল হলদার, আনন্দ কুমার ও টুটুল কুমার বাদী হয়ে ৩ জনের বিরুদ্ধে গত ৯ জুলাই তানোর থানায় মামলা করেন। পুলিশ নিহত কিশোরীর পিতা বিপদ হালদার (৩৫) সৎ মা কল্পনা রানী (২৮) ও খালা বিথীকা রানীকে (২৬) গত ৯ জুলাই মাসিন্দা হালদারপাড়া মহল্লা থেকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে প্রেরণ করেছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে ওই তরুণীকে তার সৎ মা ও খালা শারীরিক এবং মানসিকভাবে নির্যাতন করে আসছে। সম্প্রতি ১০ জুলাই শুক্রবার দুপুরে নিহত তরুণীর বাবা সৎ মা ও খালা অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে শারীরিকভাবে নির্যাতন ও মারপিট করে। তাদের নির্যাতন সইতে না পেরে আত্নহননের জন্য ঘরে রাখা ইদুর মারা গ্যাস ট্যাবলেট (বিষ) খাই অন্তরা। এতে সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এই খবর অবস্থায় স্থানীয়রা চিকিৎসার জন্য প্রথমে তানোর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নেন। পরে অবস্থার অবনতি হলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। রামেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক অন্তরাকে মৃত ঘোষনা করেন। এ ঘটনায় নিহতের লাশ ময়না তদন্ত শেষে ওইদিন রাজপাড়া থানায় অপমৃত্যুর মামলা রুজু করা হয়। এবিষয়ে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাকিবুল হাসান বলেন, অন্তরা নিহতের ঘটনায় থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার পূর্বক সংশ্লিষ্ট আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *