নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

মঙ্গলবার ২২/০৬/২০২১ ইং ভোরবেলা থেকে শুরু হয় ভারী বৃষ্টি এতে করে তলিয়ে যায় নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের বেশ কিছু এলাকা নাসিক ৮ নং ওয়ার্ডের এনায়েত নগর, ও নতুন আইলপাড়া সহ পুরাতন আইলপাড়া টানা তিন ঘণ্টার বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় বেশ কিছু দোকান ও বাসাবাড়ি এতে করে বিপাকে পরে নাসিক ৮ নং ওয়ার্ডবাসী।

পরে এনায়েত নগর ও আইলপাড়ার বাসিন্দারা ছুটে যায় জেলেপাড়া পুলে কারণ ওখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের দেওয়া দুইটি পানির পাম্প পানি নিষ্কাশনের জন্য দেওয়া হয়েছে। এলাকা বাসি দেখে পাম্প চলছে কিন্তু পানি কমছে না তাই সবাই হতাশ হয়ে যায়, এর পর এলাকার বাসিন্দারা খোঁজ করতে থাকে কোথাও পানির সমস্যা আছে কিনা।

পরে দেখতে পায় নারায়ণগঞ্জ আদমজী রোড পাঠানটুলী ও জেলেপাড়া পুল মাঝখানে ইব্রাহিম গার্মেন্টস সংলগ্ন সোহেল ও মুক্তার মিয়ার বাড়ির থেকে রোডস অ্যান্ড হাইওয়ে রাস্তার নিচে দিয়ে সুরঙ্গ করে ১০ ইঞ্চি পাইপ দিয়ে ডিএন ডির বাহিরের পানির ভিতরে ফেলা হচ্ছে এ দেখে আইলপাড়া পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি ইসমাইল মাদবরকে বিশয়টি জানালে মাদবর বলেন আগে পাইপ বন্ধ কর।

এলাকাবাসী পাইপ বন্ধ করতে গেলে মুক্তার মিয়ার পরিবার থেকে বাদা দিলে এলাকাবাসী জানতে চায় কে দিয়েছে রাস্তার নিচে পাইপ দিতে মুক্তার মিয়ার পরিবার উত্তরে বলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আইভী দিয়েছেন।
মেয়র আইভীর অনুমোদনপত্র এলাকাবাসী দেখতে চাইলে না দেখিয়ে একপর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে তর্কে জড়িয়ে পড়ে এলাকাবাসী ও মুক্তার মিয়ার পরিবার।

পরে এলাকাবাসী সম্মিলিতভাবে রাস্তার নিচের পাইপ বন্ধ করতে গেলে বাসা থেকে মুক্তার মিয়ার ছোট ছেলে রাহাত হাতে করে রডের সাবাল নিয়ে মারামারিতে জরিয়ে গেলে মুরব্বিরা রাহাত কে বাড়িতে চলে যেতে বলে বাড়িতে গিয়ে বড় ভাই রনি কে নিয়ে আবার মারামারিতে জরিয়ে গেলে এতে করে দুই পক্ষের লোকজন আহত হয় এবং নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আইভীর নাম উল্লেখ করে সকলকে হুমকি দেয়।

পরে আইলপাড়া এলাকাবাসীর মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ ও নাস্তিক ৮ নং কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা এসে সিটি কর্পোরেশনের অনুমোদন চাইলে দেখাতে ব্যর্থ হয় এরপর কাউন্সিলর ও পুলিশের উপস্থিতিতে অবৈধ রাস্তার নিচের পানির পাইপ বন্ধ করেন।
এরপরে রোডস এন্ড হাইওয়ে কর্মকর্তা এসে দেখেন বিনা অনুমতিতে রাস্তার নিচে দিয়ে সুরঙ্গ করে ১০ ইঞ্চি পাইপ ঢুকিয়েছেন পানি ছেড়েছেন সাংবাদিক প্রশ্নের উত্তরে বলেন এরা যা করেছেন তা আইনত অপরাধ আমরা এর আইনি ব্যবস্থা নিব।
এই পাইপ লাইনের কাজটি করেছেন কন্টাকটর আকরাম কাজ করতে গিয়ে আকরাম সোহেল দের বলেছেন আমি সকল প্রকার সরকারি অনুমতি নিয়ে এই কাজ করছি আপনাদের কোন প্রব্লেম হবেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *