এস এম গোলাম রাবিব নেত্রকোনা জেলা প্রতিনিধি

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়(২৭ জুলাই মঙ্গলবার) তিনি মারা যান। নিহত ওই শিক্ষিকার নাম সেলিনা পারভীন শেলী। তিনি নেত্রকোণা শহরের দত্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার সকালে দত্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে অংশ নেন শেলী। এরপর তাঁর স্বামী শফিকুল ইসলামের সাথে মোটরসাইকেলে করে শহরের কোড়পাড় বাসায় যাচ্ছিলেন। ওইদিন দুপুর পৌনে ১২টার দিকে শহরের মোক্তারপাড়া এলাকায় পৌঁছালে তাঁর শাড়ির আঁচল মোটরসাইকেলের চাকায় পেঁচিয়ে যায়। এরপর তিনি মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে যান।

পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন, সেখানে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসক শেলীকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়।

সেলিনা পারভীন শেলীর দেবর জহিরুল কবির শাহীন বলেন, ‘ঈদুল আজহায় সবাই গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার কান্দি গ্রামে গিয়েছিলেন। আমাদের বাড়ির কাছাকাছি সদর উপজেলার কাইলাটি ইউনিয়নের ফচিকা গ্রামে ভাবির বাবার বাড়ি।’

নেত্রকোণার দত্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহজাহান কবির সাজু জানান, সেলিনা পারভীন দশম শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন।’

এদিকে, সেলিনা পারভীর শেলীর নিহতের ঘটনায় পরিবারের পাশাপাশি স্কুলের সব শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *