এস এম গোলাম রাবিব : নেত্রকোনা জেলা প্রতিনিধি

মহামারী করোনা (কোভিড-১৯) নিয়ন্ত্রণে টিকাদান কর্মসূচীকে আরো বেগবান করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তারই আলোকে নেত্রকোণার বারহাট্টা উপজেলায় গণটিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ মাইনুল হক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস. এম. মাজহারুল ইসলাম শনিবার (৭ আগস্ট, ২০২১) সকাল নয়টায় বারহাট্টা সি. কে. পি. পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে কর্মসূচীর উদ্ধোধন করেন। এ সময় অন্যন্যের মধ্যে নেত্রকোণার পুলিশ সুপার আকবর আলী মুন্শী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আল আমীন হোসেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মুস্তাফিজুর রহমান, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, সি. কে. পি. পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রউফ, বারহাট্টা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক ফেরদৌস আহমাদ বাবুলসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নির্মূল কমিটির সদস্যসচিব ডাঃ মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, উপজেলার সাত ইউনিয়নে প্রতিটির সাবেক এক নম্বর (নতুন ১, ২ ও ৩) ওয়ার্ডে একটি করে মোট সাতটি টিকাদান কেন্দ্র খোলা হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে ৩টি করে বুথ আছে। প্রতিটি বুথে ২ জন করে টিকাদান কর্মী ও ৩ জন করে স্বেচ্ছাসেবক কাজ করছেন। এ ছাড়াও দুইজন করে কর্মকর্তা কেন্দ্রসমূহে সার্বক্ষণিক তদারকির দায়িত্ব পালন করছেন। কেন্দ্র সমূহ হচ্ছে, বাউশী ইউনিয়ন পরিষদ অফিস, সাহতা ইউনিয়ন পরিষদ অফিস, বারহাট্টা সি. কে. পি. পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, উজানগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, রায়মাধব সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আলোকদিয়া মাদ্রাসা ও রায়পুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। সুরক্ষা এপ্সে আঠার উর্ধ্ব বয়সের নিবন্ধিত নারী ও পুরুষগণ টিকাগ্রহণের সুযোগ পাচ্ছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নির্মূল কমিটির সভাপতি এস. এম. মাজহারুল ইসলাম উপজেলার টিকাদান কেন্দ্র সমূহ পরির্শন শেষে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আজ (শনিবার) প্রথমধাপে প্রতিটি কেন্দ্রে দু’শ ব্যক্তিকে টিকাদানের জন্য লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। কর্মসূচীর সফল বাস্তবায়নের জন্য তিনি সকলের সহায়তা কামনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *