কলকাতা থেকে নিউজ দাতা মনোয়ার ইমাম।
আজ কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় পশ্চিম বাংলার শিক্ষা দপ্তরের প্রধান সচিব কে বরখাস্ত করেন। শিক্ষা সচিব শ্রী মানিক ভট্টাচার্য ট্রেড কেলেঙ্কারির ইতিহাসের সাথে যুক্ত। তিনি বলেন যে কৃতকার্য ছাত্রদের বঞ্চিত করে লক্ষ লক্ষ টাকার বিনিময়ে অকৃতকার্য পরিক্ষার্থীদের নিয়োগ করা হয়েছে বিশাল পরিমাণের ঘুষের মাধ্যমে। এই কাজে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতিরা চুপ করে বসে থাকতে পারে না। কৃতকার্য ছাত্রদের ন্যায় অধিকার ও বিচার কে বাস্তবায়নে রূপ দেওয়ার জন্য যতদূর সম্ভব যেতে পারা যায় তা যাবেন।

বরখাস্ত শিক্ষা সচিবের দায়িত্ব সামলাবেন অতিরিক্ত সচিব রত্মা বাগচী। পশ্চিম বাংলার বর্তমান সরকার আসার পর থেকে প্রায় ২০১৪,থেকে, ২০১৭,সাল, পযন্ত যত শিক্ষক নিয়োগ করা হয়েছে তার মধ্যে ৪২,হাজের, জনের মধ্যে প্রায় ১৮,হাজার, শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে লক্ষ লক্ষ টাকা ঘুষের মাধ্যমে। এই ঘটনার সাথে যুক্ত শিক্ষা দপ্তরের সচিব থেকে শুরু করে একেবারে নীচের তলায় এজেন্টরা। তাদের মাধ্যমে প্রায় লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়ে অকৃতকার্য পরিক্ষার্থীদের নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

আজকের পশ্চিম বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন যারা বরখাস্ত হবে তাদের কে বিজেপি বিধায়কের বাড়িতে তুলে দেওয়া হবে। অন্যদিকে বিজেপি নেতৃত্ব জানিয়ে দেন যখন দিদির নেতা মন্ত্রী রা ঘুষের মাধ্যমে টাকা নিয়েছিল তখন কি তিনি জানতেন না। এই ঘুষের বিপুল পরিমাণ অর্থ তৃনমূল দলের নির্বাচনী খরচ ও মস্তি করেছেন। সেই সাথে দলীয় নেতা ও কর্মীদের পালন করতে তাদের পিছনে ব্যায় হয়েছে। যখন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতিরা চোর ধরছেন তখন চোরদের বাচাঁতে দিদি চিৎকার শুরু করে দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.