ইন্দ্রজিৎ টিকাদার
বটিয়াঘাটা (খুলনা) প্রতিনিধি:

জেলার বটিয়াঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রধান সহকারী সাইদুজ্জমান এর বিরুদ্ধে নার্স ও স্বাস্থ্য সহকারীরা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগে তারা উল্লেখ করেছেন, প্রতি মাসের বেতন বিল রেজিষ্ট্রার খাতায় স্বাক্ষর করার জন্য ১০০ টাকা করে আদায় আর্নলিভ ছুটি পাশ করার জন্য টাকা না দিলে ছুটি পাশ হয়না, মাতৃত্বকালীন ছুটি পাশ করানোর জন্য ৩ হাজার টাকা করে দিতে হয়। শ্রান্তি বিনোদনের বিল ও ছুটি পাশ করার জন্য ২ হাজার টাকা করে দিতে হয়। কারোকারো কাছ থেকে টাকা নিয়ে বার বার ট্রেনিংএ পাঠায় এবং ২/৩ হাজার টাকা দিতে হয়। নতুন কেউ যোগদান করলে যোগদানের ব্যক্তিগত কপি পেতে এবং বেতন বিল রেগুলার করতে ২ হাজার টাকা আদায় করে থাকে। অত্র হাসপাতাল থেকে কেউ বদলি হয়ে গেলে ছাড়পত্র পেতেও টাকা দিতে হয়। জলমা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের স্বাস্থ্য সহকারী নাদিরা আক্তার , আমিরপু ইউনিয়ন ২নং ওয়ার্ড স্বাস্থ্য সহকারী আঙ্গুরা খাতুন ও বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড স্বাস্থ্য সহকারী বিথীকা রানী অভিযোগ করেছেন, তারা তাদের চাকুরি স্থায়ী করনের জন্য আবেদন করলে উক্ত অফিস সহকারী সাইদুজ্জামান প্রত্যেকের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা করে দাবী করেন, যা সম্পূর্ণ অবৈধ। উক্ত সাইদুজ্জামান অনেক দিন ধরে বটিয়াঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চাকরি করছেন। তার এ ধরনের অত্যাচারে হাসপাতালের স্টাফরা অতিষ্ট্য হয়ে উঠেছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মিজানুর রহমানের সঙ্গে মুঠফোনে অভিযোগ সর্ম্পকে জানতে চাইলে তিনি জানান, অভিযোগ আমিও পেয়েছি। তদন্ত করে দেখছি। প্রয়োজনে উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের জানানো হবে।

এদিকে অভিযোগকারী সিনিয়র নার্স সুনিতী রানী, সরজু মজুমদার, লিলি মল্লিক, সাবিত্রী রানী পাল, অপর্ণা রায়, পঞ্চমী মন্ডল, জয়ন্তী রানী বিশ্বাস সহ অন্যদের কাছে অভিযোগ সর্ম্পকে জানতে চাইলে তারা জানান, অভিযোগ সম্পূর্ণ সত্য। আমরা তার অত্যাচারে ও দূর্ব্যবহারে অতিষ্ট্য হয়ে উঠেছি। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই। এ ক্ষেত্রে তার কতিপয় সহযোগি তাকে সহায়তা করে থাকেন।

এ ব্যাপারে, অভিযুক্ত মোঃ সাইদুজ্জামানের সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, তিনি এ বিষয়ে পরে কথা বলবেন, তিনি আরও বলেন আমি এখানে বহাল আছি কোর্টের আদেশে। আমাকে এখান থেকে কেউ সরাতে পারবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *