স্টাফ রিপোর্টারঃ
বন্দর ধামগড় ইউনিয়নের মালামত গ্রামের ক্রয়কৃত জমি নিয়ে, মামা সিরাজুল ইসলাম কর্তৃক ভাগিনা কামরুজ্জামান (৪৪) লাঞ্ছিত।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায় যে দীর্ঘ বছর যাবত ধামগড় মৌজার নয় নং ওয়ার্ডে পৈত্রিক বাড়িতে বসবাস করছেন কামরুজ্জামানের তিন ভাই বাবা -মা সহ তার পরিবার। মামার বাড়ি পাশে থাকায় বড় মামার থেকে ধামগড় মৌজায় ১০ শতাংশ জমি বায়না করা হয়।জমির দাম বায়না সূত্রে অর্ধেক পরিশোধ করা হয়েছে, ৩ মাসের মধ্যে বাকি নগদ অর্থ বুজিয়া না নিয়ে উল্টো চওড়া হয়ে বায়না অর্থ ফেরত দেওয়ার পায়তারা চালায়। গ্রার্ম্য শালিশী ও পঞ্চায়েত কমিটির একাধক বার মিমাংসা করলেও মানতে নারাজ মামা সিরাজুল ইসলাম।

এক পর্যায়ে উচ্চ আদালতে দারস্থ হয়ে আদালতের আইন মোতাবেক দিত্বীয় অর্ধেক নগদ অর্থ আদালতকে বুজিয়ে দিলে আদালত জমিতে স্থাপনার হুকুম জারী করেন।আদালতের এমন রায়ে তেলে বুগুনে ফোঁসে উঠেছে মামা বাহিনী। কামরুজ্জামান বলেন গতকাল ২ আগষ্ট মঙলবার পূর্বের জের ধরে আমার মামা সিরাজুল ইসলাম, উসমান গনি, মনির হোসেন, হোসেন আলী, নুরু মিয়া সহ আরো অনেক সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে অতর্কিত ভাবে হামলা চালায়। আমার বৃদ্ধ বাবাকে এসে মারধর করে, আমার স্ত্রী মিনারা ও আমার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী রোজিনা এগিয়ে গেলে তাদের গায়ে ওড়না ছিড়ে ফেলে ও মারধর করে। এ সময় আমার ছোট ভাই এগিয়ে গেলে তাকে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করেন।
এবিষয়ে বন্দর থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহ বলেন বিষয়টি আমার নলেজে আছে আমি তদন্ত করে দেখে আইন আনুগ ব্যবস্তা গ্রহণ করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.