ভারত থেকে নিউজ দাতা মনোয়ার ইমাম।।

গতকাল ভারতের কেরালা হাইকোর্টের একটি ছয় বছর স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে চলা মামলার রায় দিতে গিয়ে কেরালা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ বলেন, স্ত্রীর সম্মতি ছাড়া জোর পূর্বক শারীরিক সম্পর্ক করা ধর্ষণের সমান বলে ধরা হবে।

কারণ শারিরীক সম্পর্ক স্থাপন করতে গেলে উভয় এর মধ্যে মানষিক ও শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চলবে না। দুইজনের মধ্যে মানষিক ও শারীরিক সম্মতি ছাড়া শারীরিক সম্পর্ক করা চলবে না।

এই রায়ের ফলে পুরুষ সমাজের অর্থনৈতিক ও সামাজিক ও মানসিক ভাবে চাপের মুখে পড়তে হবে বলে মনে করছেন বিজ্ঞজনরা। তাই নয় এই রায়ের ফলে স্ত্রীর অধিকার প্রতিষ্ঠা পেতে পারে। তখন তারা স্বামীর অমতে অনেক কিছু করতে পারেন, সেখানে স্বামীর কোন ভূমিকা থাকবে না। কিছুদিন আগে দিল্লির নিরভায়া গণধর্ষণ মামলার রায় দিতে গিয়ে কিছু পরিবর্তন করে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন নিয়ে। সেখানে স্ত্রী কে প্রধ্যান্য দেওয়া হয়।

যায় ফলে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার ও সাবেক ডক্টর মনমোহন সিংহ সরকার এই রায়ের বিরুদ্ধে ছিল। তাহলে সনাতন ধর্মের যে প্রথা ও ইসলাম ধর্মের নিয়ম অনুযায়ী এই রায় মানা যায় না। এই রায় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার মানতে বাধ্য হবে না।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *