আজ ভারতের তিন সদস্যের সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছিলেন যে কোন রাজ্যের সংসদ সদস্য ও বিধায়কদের বিরুদ্ধে কেস তুলতে গেলে অবশ্যই সেই রাজ্যের হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ এর অনুমোদন লাগবে।

নতুবা কোনো সরকার ও কোন এজেন্সি সেই কেস তুলতে পারবেন না। আজ ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ এর পক্ষ থেকে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি শ্রী এন ভি রামানার নেতৃত্বে দুই বিচারপতি শ্রী ভিনীত সরন ও বিচারপতি শ্রী সূর্য কান্ত।

তাদের বক্তব্য হল যে বিভিন্ন রাজ্যের ক্ষমতাসীন দলের সংসদ ও বিধায়কদের বিরুদ্ধে কেস তোলার প্রবনতা দেখা দিচ্ছে বিভিন্ন রাজ্যের শাসক দলের। সেখানে দেখা যায় যে যে সমস্ত সংসদ সদস্য ও বিধায়কদের বিরুদ্ধে খুন এবং ধর্ষণ ও সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা এবং রাজনৈতিক হিঙসা বাড়ি লুটপাট মারদাঙ্গা মতো ফৌজদারি মামলা দায়ের করা আছে।

এমন কোন কেস তুলতে গেলে অবশ্যই সেই রাজ্যের হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ এর অনুমতি ছাড়া কোন কেস তুলতে পারবে না। সম্প্রতি ভারতের উত্তর প্রদেশের মুজাফফরপুর জেলার জাতিগত দাঙ্গা লাগাবার ঘটনায় সেই রাজ্যের বিধায়ক শ্রী সঙ্গীত সেম এবং সুরেজ রানা ও কপিল দেব এবং বিজেপি নেতা ও সংসদ সদস্য শ্রী সাধ্বী প্রচীর মহারাজ বিরুদ্ধে করা কেস তুলতে গেলে এমন মন্তব্য করেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ এর বিচারপতিগণ।

তিনি আরো বলেন, ২০১৯,শে, ৩০,শে, ডিসেম্বর আগে এমন একটি ঘটনা ঘটতে চলেছিল ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের শিবসেনা নেতৃত্বে জোট সরকারের তরফ থেকে। এমন শুধু মাত্র মহারাষ্ট্র নয় এমন ঘটনা ঘটেছে ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের সেখানে বিজেপি নেতা ও সংসদ সদস্য দের বিরুদ্ধে তোলা কেস প্রত্যাহার করতে চাইছিল সেখানকার সরকার।

এবং এমন ঘটনা ঘটেছে পশ্চিম বাংলার ক্ষেত্রে এখানে শাসক ও বিরোধী দলের সংসদ সদস্য ও বিধায়কদের বিরুদ্ধে কেস তুলতে গেলে অবশ্যই কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ এর অনুমতি লাগবে। আজ ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ রায় দিয়েছেন যে ভারতের সি বি আই ও ইডির হাতে যে সব কেস আছে তার স্টাটাস জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছিলেন সি বি আই এর সেলিটর জেনারেল শ্রী তুষার মেহতাকে। এর আগে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ এর বিচারপতি শ্রী নরিম্যান ও বিচারপতি শ্রী গাইয়ের ডিভিশন বেঞ্চ এর কিছু রায় রদ করেছেন।

সেই সঙ্গে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি শ্রী এন ভি রামান্না নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছেন যে কোন জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে কোন ফৌজদারি মামলা দায়ের থাকলে তা নির্বাচন কমিশন কে হলফনামা করে জানাতে।

এবং তা জনসাধারণের কাছে তুলে ধরতে হবে ঔ জনপ্রতিনিধি কে। কোন ফৌজদারি মামলা লুকিয়ে রাখতে পারবে না। যদি এমন হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে কড়া ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। এবং তার বিধায়ক ও সংসদ পদ খারিজ করা হবে।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *