কলকাতা থেকে নিউজ দাতা মনোয়ার ইমাম।।

১৯৯৩সালে, তৎকালীন ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের যুব শাখার ডাকে মহাকরণ অভিযান কালে পুলিশের গুলিতে নিহত প্রায় সতেরো জন। সেই দিনের কলকাতার রাজপথে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যাজ ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের তাজা যুককের দেহ। তার পরে পশ্চিম বাংলার মুখ্যমন্ত্রী ও তৃনমূল দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতের জাতীয় কংগ্রেস ত্যাগ করে নতুন দল তৈরি করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কিন্তু সেই সময়কার ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের পশ্চিম বাংলার যুব সভাপতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। কিন্তু কলকাতার পার্ক ট্রিট মোড়ে তখনকার বামফ্রন্ট সরকারের পুলিশ বিক্ষোভকারীদের গতি রোধ করে। বাধে খন্ডযুদ্ধ, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের উপর পুলিশ গুলি চালায় বেপরোয়া ভাবে। পুলিশের গুলিতে নিহত হন তৎকালীন ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের যুব কর্মীরা।

সেই দিনের কথা স্মরণ করে প্রতি বছর শহীদ দিবস পালন করেন পশ্চিম বাংলার তৃনমূল দলের নেতৃত্ব ও ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের সদস্যরা। আগামী ২১শে, জুলাই কলকাতার ধর্মতলা যাওয়ার ডাক দিয়েছেন পশ্চিম বাংলার তৃনমূল দলের সুপ্রিমো ও পশ্চিম বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সেই ডাকে সাড়া দিয়ে ধর্মতলা যাওয়ার ডাক দিয়ে এদিন কলকাতার রতন বাবুর বাজারে বক্তব্য রাখেন পশ্চিম বাংলার তৃনমূল দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই তৃনমূল দলের ক্রীড়া সেলের সভাপতি বাপন ব্যানার্জী। এই সভায় উপস্থিত ছিলেন তৃনমূল দলের অন্যতম নেতা কার্তিক মান্না সহ অন্যান্য তৃনমূল দলের নেতৃত্ব।।

Leave a Reply

Your email address will not be published.